নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, মঙ্গলবার ৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ৫ রবিউস সানি ১৪৪১
ফের উত্তপ্ত রাজনীতি
কঠোর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি বিএনপির
আমিরুল ইসলাম অমর
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ধাক্কা সামলে কারাবন্দি খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে ফের রাজপথে সক্রিয় হতে যাচ্ছে বিএনপি। এতে নতুন করে উত্তপ্ত হচ্ছে রাজনীতি ও রাজপথ। বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি, সরকারের পদত্যাগ ও নতুন নির্বাচনের দাবিতে শিগগিরই মাঠে দেখা যাবে দলটির নেতাকর্মীদের। নির্বাচনের প্রথম বর্ষপূর্তি সামনে রেখে রাজধানীতে বড় ধরনের রাজধানীতে বড় ধরনের সমাবেশ করার প্রস্তুতি নিচ্ছে দলটি। এতে ব্যাপক শোডাউনের মাধ্যমে রাজপথে তাদের উপস্থিতি জানান দেয়ার পরিকল্পনা করা হয়েছে। ঢাকার বাইরে বিভাগীয় শহরগুলোতেও পর্যায়ক্রমে সমাবেশ করবেন বলে জানিয়েছেন বিএনপির নেতারা।

আগামী ৫ ডিসেম্বরের মধ্যে কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি না দিলে সরকার পতন আন্দোলনের হুমকি দিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন। অপরদিকে, আন্দোলনের নামে কোনো প্রকার অরাজকতা সৃষ্টি করলে বিএনপিকে সমুচিত জবাব দেয়ার হুমকি দিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। গত শুক্রবার রাজধানীতে পৃথক সভায় তারা এসব হঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

গত শুক্রবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে আয়োজিত আলোচনা সভায় খন্দকার মোশাররফ বলেন, আগামী ৫ ডিসেম্বরের মধ্যে যদি দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি না দেয়া হয় তাহলে সরকার পতনের একদফা আন্দোলন শুরু হবে। খন্দকার মোশাররফ বলেন, খালেদা জিয়াকে মামলার কারণে নয়, গণতন্ত্র রক্ষার আন্দোলনের জন্যই কারাগারে যেতে হয়েছে। খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার সঠিক রিপোর্ট আপিল বিভাগে দিতে বিএসএমএমইউ'র মেডিকেল বোর্ডকে আহ্বান জানান বিএনপি'র স্থায়ী কমিটির এই সদস্য। এছাড়া দুর্নীতির সুযোগ করে দিতে সরকার বিদ্যুতের দাম বাড়াচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

অপরদিকে, রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনে আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগের সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের বলেন, খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য আদালতের উপর চাপ দিতেই বিএনপি আদালত প্রাঙ্গণে সহিংসতা করেছে। বিএনপি আন্দোলনের নামে সহিংসতা করলে সমুচিত জবাব দেয়া হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনপ্রিয় সরকারকে হটাতে ষড়যন্ত্র অব্যাহত আছে। এই ষড়যন্ত্র রুখতে নেতাকর্মীদের প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দেন ওবায়দুল কাদের। বিএনপি অরাজনৈতিকভাবে সহিংসতার পথে গেলে সমুচিত, দাঁতভাঙা জবাব দিতে আওয়ামী লীগও প্রস্তুত রয়েছে বলেও জানিয়েছেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, বিএনপি দেশে নৈরাজ্য-বিশৃঙ্খলা করলে দাঁতভাঙা জবাব দেয়া হবে। আন্দোলন-নির্বাচনে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি ও তার দোসররা ষড়যন্ত্র-চক্রান্ত করছে। নৈরাজ্য করে আজকে দেশে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি করে ঘোলাপানিতে মাছ শিকার করার অশুভ পাঁয়তারা চালিয়ে যাচ্ছে। গত রোববার বঙ্গবন্ধু এভিনিউস্থ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আওয়ামী লীগের ২১তম জাতীয় সম্মেলন উপলক্ষে সাজসজ্জা উপ-কমিটির প্রস্তুতি সভা শেষে তিনি সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, এই দানব সরকারকে সরাতে হলে দল-মত নির্বিশেষে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে রাস্তায় নামতে হবে, এটাই হচ্ছে একমাত্র পথ। আমি নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে রাজপথে নামার আহ্বান জানাচ্ছি। তিনি বলেন, আমাদের মধ্যে অনেকেই হতাশার কথা বলেন। হতাশাই শেষ কথা নয়। মনে রাখতে হবে, অন্ধকারের পরেই আসবে নতুন ভোর। গত রোববার দুপুরে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে নারী ও শিশু অধিকার ফোরাম আয়োজিত এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের উদ্দেশ্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেছেন, আন্দোলন বিএনপি করার আগেই তো আপনারা ভয় পেয়ে গেছেন। কখন কি হবে বুঝতে পারছেন না? বিএনপির কর্মীদের গ্রেফতারের ভয় দেখিয়ে লাভ নেই মন্তব্য করে আব্বাস বলেন, আমাদের আলাল সাহেব (মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল) তথ্য দিলেন, আমাদের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে এখন মামলার সংখ্যা ২৬ লাখ নয়, ৩৫ লাখ। অর্থাৎ আমাদের ৩৫ লাখ নেতাকর্মী গ্রেফতার হওয়ার জন্য প্রস্তুত রয়েছেন। তাদের বাবা-মা, ভাই-বোনেরাও রয়েছেন। সুতরাং আওয়ামী লীগের সতর্ক হওয়া উচিত। বাংলাদেশের কোটি কোটি বিএনপির সমর্থক এবং জনগণ ক্ষিপ্ত হয়ে রয়েছে। গতকাল সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত এক প্রতিবাদ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে সুচিকিৎসা বঞ্চিত না করে এবং তাকে আর কষ্ট না দিয়ে অবিলম্বে মুক্তি দিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এডভোকেট রুহুল কবির রিজভী। প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে রিজভী বলেছেন, বেগম খালেদা জিয়াকে বন্দি করে বিনা চিকিৎসায় আপনি অমানবিক কষ্ট দিচ্ছেন, বেগম জিয়ার প্রতি এই নিষ্ঠুরতা বিশ্বের স্বৈরশাসকরা যে আচরণ করে সেই আচরণেরই সমতুল্য। দেশনেত্রীকে আর কষ্ট না দিয়ে তাকে নিঃশর্ত মুক্তি দিন। আপনি জনগণের পুঞ্জিভূত ক্রোধ আঁচ করতে পারছেন না বলেই বেগম জিয়াকে মুক্তি না দিয়ে তাকে তিলে তিলে নিঃশেষ করার চেষ্টায় উঠেপড়ে লেগেছেন। কিন্তু আপনার নেতৃত্বে পরিচালিত ফ্যাসিবাদী সরকারের লোহার খাঁচা ভেঙে দেশনেত্রীকে মুক্ত করার জন্য জনগণ এখন চূড়ান্ত প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। গতকাল সোমবার সকালে খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে এক বিক্ষোভ মিছিল শেষে পথসভায় দেয়া সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও সাবেক যুবদল সভাপতি এডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেছেন, দৌড় প্রতিযোগিতায় যেমন রেডি'র পরে স্টার্ট বলা হয় এবং গো বলার পর যেমন সবাই একযোগে দৌড় দেয় তেমনই আমাদের আন্দোলনের রেডি, স্টাড পর্ব শেষ হয়ে গেছে। এখন শুধু গো বলার পালা। গো বললেই সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে একযোগে আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়বেন। নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, কখন আন্দোলন হবে এই দায়িত্বটা স্থায়ী কমিটি ও ভাইস চেয়ারম্যানদের ওপরে ছেড়ে দিয়ে আপনারা চূড়ান্ত প্রস্তুতি নিন। কারণ যেকোনও মুহূর্তে 'গো' বলা হবে। যখনই 'গো' বলা হবে তখনই আপনারা আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়ে বিজয় ছিনিয়ে নিয়ে আনবেন। মনে রাখবেন- এই সরকারের পতনের সময় ঘনিয়ে এসেছে। গতকাল সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত এক প্রতিবাদ সভায় তিনি এসব কথা বলেন। প্রসঙ্গত, আগামী ৫ ডিসেম্বরের মধ্যে আপিল বিভাগে বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার বিষয়ে জানতে মেডিকেল বোর্ডের রিপোর্ট দাখিল করতে বলা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের ৬ সদস্যের বেঞ্চ এ আদেশ দেন। একইসঙ্গে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় বেগম জিয়ার জামিন আদেশ বিষয়ে আগামী ৫ ডিসেম্বর আদেশের জন্য দিন ধার্য করেছেন আদালত।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীনভেম্বর - ১০
ফজর৫:০৮
যোহর১১:৫১
আসর৩:৩৭
মাগরিব৫:১৬
এশা৬:৩৩
সূর্যোদয় - ৬:২৯সূর্যাস্ত - ০৫:১১
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৪১৪৪.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.