নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, মঙ্গলবার ৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ৫ রবিউস সানি ১৪৪১
নতুন সড়ক পরিবহণ আইন প্রয়োগ শুরু
স্টাফ রিপোর্টার
ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) এর ট্রাফিক বিভাগ নতুন 'সড়ক পরিবহণ আইন-২০১৮' প্রয়োগ শুরু করেছে। প্রাথমিকভাবে ডিএমপি ট্রাফিকের ৪টি বিভাগ সীমিত পরিসরে এই কার্যক্রম চালাচ্ছে, যা খুব দ্রুত পুরোদমে শুরু করা হবে।

গত ১ নভেম্বর থেকে আইনটি কার্যকর করার ঘোষণা দেন সড়ক যোগাযোগ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। কিন্তু বিভিন্ন মহল থেকে এ নিয়ে প্রবল আপত্তি ও প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়। ফলে পুলিশ এতো দিন আইন লঙ্ঘনকারীদের মামলা না দিয়ে নতুন আইন সম্পর্কে জনসাধারণকে সচেতনতা মূলক কার্যক্রম চালায়। ডিএমপির ট্রাফিক ইন্সপেক্টর, সহকারী কমিশনার (এসি), সার্জেন্টদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, ডিএমপি ট্রাফিকের ৪ বিভাগে কয়েকটি উপ-বিভাগের এসিদের নেতৃত্বে একটি দল গঠন করা হয়েছে। যারা নিজস্ব এলাকার বিভিন্ন স্পটে ঘুরে আইন প্রয়োগ করছে। এসি ছাড়াও দলে কয়েকজন সার্জেন্ট, এএসআই ও কন্সটেবল রয়েছেন। নির্ধারিত ছাপানো ফর্মে বর্তমানে মামলা দেয়া হচ্ছে। দেখা গেছে, ফর্মে ঘটনার তারিখ, ঘটনাস্থলের ঠিকানা, অভিযুক্তের নাম, পরিচয়, মোবাইল নম্বর লেখা হচ্ছে। পাশাপাশি একজন সাক্ষীর নাম, পরিচয়ও লিপিবদ্ধ করা হচ্ছে। একই সাথে কী অপরাধে, কত জরিমানা করা হচ্ছে তা উল্লেখ করা হচ্ছে। ফর্মের নিচে অভিযুক্তের ও অভিযোগকারির স্বাক্ষর নেয়া হচ্ছে।

ডিএমপির ট্রাফিক বিভাগের প্রধান অতিরিক্ত কমিশনার মফিজ উদ্দিন আহম্মেদ জানান, নতুন আইন প্রয়োগ খুব সাবধানতার সঙ্গে করা হচ্ছে। পজ মেশিনগুলো প্রস্তুত হয়ে গেলে পূর্ণাঙ্গভাবে মামলা দেয়ার কাজ শুরু হবে। নতুন সড়ক পরিবহণ আইনে বেশিরভাগ ধারার জরিমানা ১০ থেকে ৫০ গুণ বাড়ানো হয়েছে। আগে যেসব ধারায় এক মাস কারাদ-ের বিধান ছিল, এখন তা ২ বছর পর্যন্ত হয়েছে। আইনের বেশির ভাগ ধারাতেই সর্বোচ্চ শাস্তি কত হবে তা আছে, সর্ব নিম্ন শাস্তির উল্লেখ নেই। গত ১ ডিসেম্বর সকাল সাড়ে ১১টার দিকে ঢাকার নতুন বাজার ভাটারা এলাকায় অর্থদ- দেয়া হয় একজন মোটর সাইকেল চালককে। অপরাধ ছিল- ড্রাইভিং লাইসেন্স না থাকা, জরিমানার পরিমাণ ৫ হাজার টাকা। একই অপরাধ আবার করলে জরিমানার পরিমাণ হবে ১০ হাজার টাকা। এ মোটরসাইকেলের চালক মেহেদী জানান, বিআরটি লাইসেন্স দিতে দেরি করছে। সেটা কেন দেখা হচ্ছে না? একইদিন বিকাল ৫টার দিকে দরজা খুলে বাস চালানোর অপরাধে বনানী কাকলী এলাকায় একটি বড় বাসকে ৩ হাজার টাকা অর্থদ- দেয়া হয়। একই অপরাধ আবার করলে ওই বাস চালকের অর্থদ- হবে ৬ হাজার টাকা। ৩০ নভেম্বর থেকেই নতুন আইনে পুলিশ মামলা দেয়া শুরু করে। ট্রাফিক কর্মকর্তাদের ভাষ্য, আইন লঙ্ঘনকারীর ভিডিও চিত্র ধারণ করা হচ্ছে। এরপর তাকে থামিয়ে আইন লঙ্ঘনের বিষয়টি জানানো হচ্ছে। তিনি কিভাবে আইন লঙ্ঘন করেছেন, তা বলা হচ্ছে। এরপর সংশ্লিষ্ট ধারায় তাকে মামলা দেয়া হচ্ছে। এতে মানুষ ট্রাফিক পুলিশকে ভুল বুঝবে না। ট্রাফিক পশ্চিম বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার মো. মনজুর মোর্শেদ জানান, বিজয় সরণি মোড়ে প্রথম দিন তারা ৫টি মামলা দিয়েছেন। যারা উল্টো পথে চলাচল করেছে এবং ড্রাইভিং লাইসেন্স নেই এমন মোটরসাইকেল, প্রাইভেটকার ও পিকআপকে এই মামলা দেয়া হয়েছে।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীনভেম্বর - ১০
ফজর৫:০৮
যোহর১১:৫১
আসর৩:৩৭
মাগরিব৫:১৬
এশা৬:৩৩
সূর্যোদয় - ৬:২৯সূর্যাস্ত - ০৫:১১
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৪১৬৯.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.