নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বৃহস্পতিবার ৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ২৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪০
বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরি
ফেড ও আরসিবিসি'র বিরুদ্ধে মামলা হবে
অর্থনৈতিক রিপোর্টার
যুক্তরাষ্ট্রে রক্ষিত বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির ঘটনায় সে দেশের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্ক (ফেড) এবং ফিলিপাইনের রিজাল কমার্শিয়াল ব্যাংকের (আরসিবিসি) বিরুদ্ধে মামলা করবে বাংলাদেশ ব্যাংক। অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত গতকাল বুধবার এ কথা জানিয়েছেন। সচিবালয়ে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।

অর্থমন্ত্রী বলেন, সময় শেষ হয়ে আসছে। মামলা করার জন্য আগামী ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত সময় আছে। তাই এ

বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক খুব সিরিয়াসলি কাজ করছে। তিনি বলেন, মামলা করার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক ফেডের সহযোগিতা প্রয়োজন। তাদের সঙ্গেও আলোচনা হয়েছে।

মামলাটা কার কার বিরুদ্ধে হবে- জানতে চাইলে মুহিত বলেন, ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্ক (ফেড) এবং ফিলিপাইনের রিজাল কমার্শিয়াল ব্যাংকের (আরসিবিসি) বিরুদ্ধে হবে। তাহলে কি ফেড বাংলাদেশের পক্ষে থাকবে? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, আমার মনে হয় থাকবে। কারণ তাদের মাধ্যমেই তো সবকিছু হয়েছে। এটা শুধু বাংলাদেশের বিষয নয়। এটা বিশ্বব্যাপী বিষয়। কারণ সারাবিশ্বের টাকা-পয়সা তারা রাখে।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্কে (ফেড) রক্ষিত বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাব থেকে ১০ কোটি ১০ লাখ ডলার চুরি হয়। ৫টি সুইফট বার্তার মাধ্যমে চুরি হওয়া এ অর্থের মধ্যে শ্রীলঙ্কায় যাওয়া ২ কোটি ডলার ফেরত আসে। তবে ফিলিপাইনে যাওয়া ৮ কোটি ১০ লাখ ডলারের মধ্যে এখনও ফেরত আসেনি ৬ কোটি ৬৪ লাখ ডলার। ফিলিপাইনের ব্যাংক আরসিবিসি ইতোমধ্যে জানিয়েছে, বাংলাদেশকে কোনো অর্থ ফেরত দেয়ার পরিকল্পনা তাদের নেই। রিজার্ভ চুরির ঘটনায় দায়িত্ব অস্বীকার করে তারা বলেছে, বাংলাদেশ ব্যাংকের অবহেলা ও অসাবধানতার দায় বাংলাদেশকেই নিতে হবে। এরপর বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে বলা হয়, ফিলিপাইন অর্থ ফেরত দেয়ার বিষয়ে কার্যকর পদক্ষেপ না নিলে মামলা করা হবে।

এদিকে শুরু থেকেই অর্থ চুরির এ ঘটনা নিয়ে বাংলাদেশে ব্যাংক ঢাক গুড় গুড় ভাব দেখিয়ে এসেছে। ২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে রিজার্ভ থেকে অর্থ চুরি হলেও তা প্রকাশ পায় এক মাস পর মার্চে। এ নিয়ে তখন আলোড়ন সৃষ্টি হয়। সরকারের পক্ষ থেকেও দায়ী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া এবং অর্থ ফেরত আনার আশ্বাস দেয়া হয়। নৈতিক দায় নিয়ে তৎকালীন গভর্নর ড. আতিউর রহমান পদত্যাগও করেন। পরবর্তীতে রহস্য উদ্?ঘাটনে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিনের নেতৃত্বে কমিটি গঠিত হয়, তারা যথাসময়ে তদন্ত প্রতিবেদনও জমা দিয়েছে। কিন্তু সেই প্রতিবেদন আজও প্রকাশ করা হয়নি।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীনভেম্বর - ১৭
ফজর৫:১৩
যোহর১১:৫৫
আসর৩:৩৯
মাগরিব৫:১৮
এশা৬:৩৬
সূর্যোদয় - ৬:৩৪সূর্যাস্ত - ০৫:১৩
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৫৬৫.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.