নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বৃহস্পতিবার ৭ ডিসেম্বর ২০১৭, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯
রূপগঞ্জে সাংবাদিক লাঞ্ছিতের ঘটনায় এএসআই ও ২ কনস্টেবল ক্লোজড
রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি
মাদক কারবারিদের ইয়াবাসহ আটকের পর মোটা অঙ্কের উৎকোচের বিনিময়ের ছেড়ে দেওয়ার ছবি ধারণ করতে গিয়ে দৈনিক প্রতিদিনের সংবাদ পত্রিকার রূপগঞ্জ প্রতিনিধি পুলিশের হাতে লাঞ্ছিত হয়েছেন। পরে রূপগঞ্জে কর্মরত বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক ও ইলেকট্রনিঙ্ মিডিয়ার সাংবাদিকরা রূপগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই)সহ নির্যাতনকারী পুলিশের অপসারণ চেয়ে বিক্ষোভ করে।

গত রোববার রাত ১১টার দিকে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার অভিযুক্ত রূপগঞ্জ থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক হুমায়ুন বাসার ও দুই কনস্টেবলকে ক্লোজড করে নারায়ণগঞ্জ পুলিশ লাইনে প্রত্যাহার করেছে। লাঞ্চিতের শিকার সাংবাদিক আল-আমিন মিন্টু জানান, গত রোববার বিকালে রূপগঞ্জ থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক হুমায়ুন বাসার উপজেলার গর্ন্ধবপুর এলাকার ইয়াবা সম্রাট ফারুক হোসেন ও শরিফ মিয়াকে ৭০ পিস ইয়াবাসহ আটক করে।

এসময় এএসআই হুমায়ুন বাসার মাদক কারবারিদের কাছ থেকে এক লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে ছেড়ে দেওয়ার প্রক্রিয়া করে। স্থানীয় লোকজনের মাধ্যমে খবর পেয়ে চিহ্নিত মাদক কারবারিদের ছেড়ে দেয়ার ছবি ধারণ করতে গেলে দারোগা হুমায়ুন বাসার, কনস্টেবল সোহেল মিয়া ও তামজীদ তার সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করে। সংবাদ পেয়ে রূপগঞ্জে কর্মরত বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক ও ইলেকট্রনিঙ্ মিডিয়ার সাংবাদিকরা রোববার রাত ৯ টার দিকে রূপগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে ঐ এএসআইয়ের অপসারণ চেয়ে বিক্ষোভ করে। ঘটনার বিষয়টি নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপারকে অবহিত করা হলে রাত ১১টার দিকে এএসআই হুমায়ুন বাসারসহ দুই কনস্টেবলকে ক্লোজড করে নারায়ণগঞ্জ পুলিশ লাইনে প্রত্যাহার করা হয়। অভিযোগ রয়েছে, রূপগঞ্জ থানায় যোগদানের পর থেকেই হুমায়ুন বাসার মাদক কারবারিদের সঙ্গে সখ্যতা গড়ে তোলে। উপজেলার ৩৫ জন মাদক কারবারি থেকে সে প্রতিমাসে এক লাখ টাকা মাসোহারা আদায় করে। মাসোহারা না পেলে ঐ মাদক কারবারিকে অভিযানের নামে হয়রানি করে মোটা অঙ্কের উৎকোচের বিনিময়ে ছেড়ে দেয়। সাংবাদিক লাঞ্চিতের ঘটনায় রূপগঞ্জের রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী, বিভিন্ন উপজেলার প্রেসক্লাবের সাংবাদিক, সুশীল সমাজের লোকজন দারোগার শাস্তি ও নিন্দা জানিয়েছেন। কলামিস্ট, গবেষক ও রূপগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি মীর আব্দুল আলীম বলেন, এটা খুবই ন্যক্কারজনক। তথ্য সংগ্রহ ও ছবি তুলতে গিয়ে সাংবাদিকের সঙ্গে পুলিশের অসৌজন্যমূলক আচরণ করাটা সঠিক হয়নি। এর তীব্র নিন্দা জানাই। রূপগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ ইসমাঈল হোসেন বলেন, সাংবাদিকের সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করাটা অন্যায় হয়েছে। হুমায়ুন বাসার ও দুই কনস্টেবকে ক্লোজড করা হয়েছে।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত