নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বৃহস্পতিবার ৭ ডিসেম্বর ২০১৭, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯
নাঙ্গলকোটে এসএসসি ফরম পূরণে অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের অভিযোগ
কেউ মানছে না বোর্ডের নির্দেশনা
নাঙ্গলকোট (কুমিল্লা) থেকে মো. রেজাউল করিম রাজু
কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে এস এস সি পরীক্ষার ফরম পূরণে শিক্ষা বোর্ডের নিয়ম নীতিকে তোয়াক্কা না করে নির্বাচনী পরীক্ষায় অকৃতকার্য ও কৃতকার্য শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত অর্থ নিয়ে ফরম পূরণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। আবার অকৃতকার্য প্রায় সংখ্যক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা ফরম পূরণ করতে না পেরে হতাশা প্রকাশ করে কান্নায় ভেঙে পড়ছে। কেউ কেউ আত্মহত্যার হুমকি দিচ্ছে। শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে চিঠির মাধ্যমে জানানো হয়েছে যে, টেস্ট পরীক্ষায় ১ বিষয় অকৃতকার্য হলে তার ফরম পূরণ করা যাবে না। টেস্ট পরীক্ষার রেজাল্ট শীট বোর্ডে জমা দেয়ার নির্দেশ রয়েছে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, উপজেলার মাধ্যমিক ৩৯টি স্কুল ও ৪১টি মাদ্রাসার মধ্যে প্রায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান অতিরিক্ত টাকার বিনিময়ে ফরম পূরণ করেছেন। চাটিতলা উচ্চ বিদ্যালয়, বাইয়রা জয়নাল আবেদীন উচ্চ বিদ্যালয়, বঙ্গঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় ও গালর্স স্কুল, সাতবাড়িয়া উচ্চ বিদ্যালয়, সিজিয়ারা উচ্চ বিদ্যালয়, ঢালুয়া উচ্চ বিদ্যালয়, পানকরা হাফেজা উচ্চ বিদ্যালয়, বাঙ্গড্ডা বাদশা মিয়া উচ্চ বিদ্যালয়, কাকৈরতলা উচ্চ বিদ্যালয়, হেসাখাল উচ্চ বিদ্যালয়, দায়েমছাতি উচ্চ বিদ্যালয়, বেগম জামিলা উচ্চ বিদ্যালয়, এ আর মডেল উচ্চ বিদ্যালয়, ভোলাইন স্কুল এন্ড কলেজ, ধাতিশ্বর আহমেদ দেলোয়ারা স্কুল এন্ড কলেজ, দৌলখাঁড় উচ্চ বিদ্যালয়, আজিয়ারা উচ্চ বিদ্যালয়, ঝিকুটিয়া গার্লস স্কুল, মাহীনি উচ্চ বিদ্যালয়, মন্তলী স্কুল এন্ড কলেজ, চান্দগড়া উচ্চ বিদ্যালয়, পাটোয়ার ফাজিল মাদ্রাসা, ঢালুয়া মাদ্রাসা, বাঙ্গড্ডা মাদ্রাসা, চান্দইশ মাদ্রাসা ও জোড্ডা মাদ্রাসাসহ প্রায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে নির্বাচনী পরীক্ষায় ১-৩ বিষয়ে অকৃতকার্য শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে এসএসসি ফরম পূরণে অতিরিক্ত ২ হাজার থেকে ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত নেয়ার এমনি চিত্র পাওয়া যায়। এদিকে কৃতকার্য শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ২ হাজার থেকে ৩ হাজার টাকা নেয়ারও অভিযোগ উঠেছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধকি প্রতিষ্ঠানের অর্কৃতকার্য শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, ২-৩ বিষয়ে ফেল করায় তাদের কাছ থেকে স্যারেরা ফরম পূরণের জন্য ৩ হাজার থেকে ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত অর্থ আদায় করছে। অপরদিকে কৃতকার্য শিক্ষার্থীরা জানান, পাস করার পরেও তাদরে কাছ থেকে ২ হাজার থেকে ৩ হাজার টাকা পর্যন্ত আদায় করছে। ফরম পূরণ করতে না পারা কিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা কান্নায় জড়িত কণ্ঠে বলেন, দীর্ঘ ৫ বছর শুনামের সহিদ বিদ্যালয়ে লেখাপাড়া করি। বিভিন্ন পরীক্ষায় কৃতকার্যসহকারে উত্তীর্ণ হই কিন্তু টেস্ট পরীক্ষায় ফেল করায় স্যারেরা এসএসসি ফরম পূরণ করাচ্ছে না। এতে সকল আশা আকাঙ্ক্ষায় ব্যর্থ হয়ে পড়ছে। অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অতিরিক্ত টাকার বিনিময় ফরম পূরণ করাচ্ছে। আমাদের জন্য কেন এত বাধা? এ বিষয়ে চাটিতলা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. সায়দেুল হক ও বেলায়েত হোসেন মজুমদারসহ একাধিক প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষকদের সাথে কথা বলে জানা যায়, অতিরিক্ত টাকা আদায়ের বিষয়টি অস্বীকার করেন। এ ব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোনাজের রশিদ বলেন, অভিযোগ পেলে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ বিষয়ে গত রোববার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দাউদ হোসেন চৌধুরী জানান, এখনও কেউ অভিযোগ দেয় নাই, অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত