নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বৃহস্পতিবার ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ২১ মাঘ ১৪২৭, ২১ জমাদিউস সানি ১৪৪২
সাউদাম্পটনের জালে ইউনাইটেডের ৯ গোল
স্পোর্টস ডেস্ক
নয় জনের সাউদাম্পটনকে ৯-০ গোলে বিধ্বস্ত করে নগর প্রতিদ্বন্দ্বী ম্যানচেস্টার সিটির সাথে সমান পয়েন্টে প্রিমিয়ার লিগের শীর্ষে উঠে এসেছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। প্রিমিয়ার লিগের ইতিহাসে এক ম্যাচে এটা তৃতীয় ৯ গোলের ঘটনা। এ নিয়ে টানা দ্বিতীয় মৌসুমে সেইন্টরা ৯ গোলের লজ্জায় ডুবলো। গত মৌসুমে সেন্ট মেরি'সে একই ব্যবধানে লিস্টার সিটির কাছে তারা বিধ্বস্ত হয়ছিল। ১৯৯৫ সালে ইচউইচের জালে ৯ গোল দিয়ে ইউনাইটেডই প্রথম এই রেকর্ড গড়েছিল। ওল্ড ট্রাফোর্ডের ম্যাচটিতে শুরুর দ্বিতীয় মিনিটে অভিষিক্ত সুইস মিডফিল্ডার আলেক্সান্দ্রে জানকেউইজ লাল কার্ডের কারণে মাঠ ত্যাগে বাধ্য হলে সফরকারীদের দু:সয়ম শুরু হয়। বিরতির আগে এ্যারন ভন-বিসাকা, মার্কোস রাশফোর্ড, এডিনসন কাভানি ও ইয়ান বেডনারেকের গোলে ইউনাইটেড ৪-০ ব্যবধানে এগিয়ে যায়। এ্যান্থনি মার্শাল বদলী বেঞ্চ থেকে উঠে এসে দ্বিতীয়ার্ধে দুই গোল দিয়েছেন। ৮৬ মিনিটে বেডনারেক দ্বিতীয় হলুদ কার্ডের কারণে মাঠ ত্যাগ করলে সাউদাম্পটন ৯ জনের দলে পরিণত হয়। মার্শালের সাথে দ্বিতীয়ার্ধে আরো গোল দিয়েছেন স্কট ম্যাকটোমিন, ব্রুনো ফার্নান্দেস ও ড্যানিয়েল জেমস। ইউনাইটেডের থেকে দুই ম্যাচ কম খেলে সিটি ৪৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রয়েছে। ২০১১/১২ মৌসুমে গোল ব্যবধানে ইউনাইটেডকে পিছনে ফেলে শিরোপা জয় করেছিল সিটিজেনরা। ঐ স্মৃতি এখনো ভুলতে পারেনি রেড ডেভিলসরা। ইউনাইটেড বস ওলে গানার সুলশারও সেই স্মৃতি ভুলে শিরোপা নিশ্চিত করতে চান। এ সম্পর্কে সুলশার বলেছেন, 'আমরা জানি গোল ব্যবধানে পিছিয়ে পড়ার স্মৃতি কতটা দু:সহ। কারণ আমরা লিগ শিরোপ হারিয়েছিলাম এই গোল ব্যবধানের কারনেই।' গত দুই সপ্তাহে তলানির দল শেফিল্ড ইউনাইটেডের কাছে ২-১ গোলের হতাশাজনক পরাজয়ে পর আর্সেনালের সাথে গোল শুন্য ড্র করে পয়েন্ট হারিয়েছে ইউনাইটেড। যে কারণে সুলশার আগেই তার ফরোয়ার্ডদের আরো বেশী সতর্ক হবার অনুরোধ জানিয়েছিলেন। তার প্রতিদান কাল ঠিকই দিয়েছে রাশফোর্ড, মার্শাল, কাভানিরা। ২০২১ সালে এখনো পর্যন্ত নিজেদের নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেননি রাশফোর্ড, মার্শাল ও ফার্নান্দেস। কিন্তু মৌসুমের দ্বিতীয় ভাগে এসে খেলোয়াড়রা নিজেদের আত্মবিশ্বাস ঠিকই ফিরে পাবে এবং সেই শক্তিতে শিরোপা দৌঁড়ে রেড ডেভিলসরা ঠিকই টিকে থাকবে বলে সুলশার বিশ্বাস করেন। ইউনাইটেডস বস বলেন, 'আমরা যাদু দেখানোর জন্য অপেক্ষায় ছিলা। আর সেই রাতটা ছিল কাল। সবাই মিলে আমরা অবশ্যই এই জয় উপভোগ করবো। এবারের আসরে এমন সময় খুব কমই এসেছে যখন আমরা দ্বিতীয়ার্ধ পুরোটা দারুনভাবে উপভোগ করেছি।' লিস্টারের কাছে আগের মৌসুমে ৯-০ গোলে বিধ্বস্ত হবার পর সাউদাম্পটনের চাকরি কোনমতে রক্ষা পেয়েছিল কোচ রাফ হ্যাসেনহাটেলের। কিন্তু মৌসুমের শুরুটা দারুনভাবে হলেও সেইন্টসরা টানা চার লিগ ম্যাচে পরাজিত হয়ে টেবিলের ১২তম স্থানে নেমে গেছে। ইতোমধ্যেই দলে দেখা দিয়েছে ইনজুরি সমস্যা। যে কারণে ১৯ বছর বয়সী সুইস মিডফিল্ডার জানকুইজের অভিষেক হয়। কিন্তু ম্যাকটোমিনেকে ফাউলের অপরাধে মাত্র ৭৯ সেকেন্ডে তাকে মাঠ ত্যাগ করতে হলে অভিষেকটা মোটেই স্মরণীয় হয়নি। হ্যাসেনহাটেল বলেছেন, 'ম্যাচের শুরুতেই জানকুইজ বেরিয়ে যাওয়ায় খেলোয়াড়রা বেশ অসহায় হয়ে পড়ে। এই ধরনের দলের বিপক্ষে ৯০ মিনিট টিকে থাকাটা অনেক লম্বা সময়। ফলাফলই তার প্রমান। আমাদের আবারো বড় পরাজয়ের মুখ দেখতে হলো। আমি এই মুহূর্তে মৌসুমে আমরা কি করেছি তার উপর আলোকপাত করতে চাইনা। এর বর্ণনা দেয়া কঠিন। আমাদের আবারো সেই অবস্থানে ফিরে আসতে হবে।' ১৮ মিনিটে ফন-বিসাকা ইউনাইটেডের হয়ে গোলের দরজা উন্মুক্ত করেন। লুক শ'র ক্রস থেকে তিনি ইউনাইটেডের ক্যারিয়ারে দ্বিতীয় গোল করেন। ২৫ মিনিটে ম্যাসন গ্রীনউডের ক্রস থেকে রাশফোর্ড ব্যবধান দ্বিগুন করেন। ৩৪ মিনিটে রাশফোর্ডের লো ক্রস থেকে বেডনারেক আত্মঘাতি গোলের লজ্জায় ফেলেন সফরকারীদের। পাঁচ মিনিট পর শ'র আরো একটি ক্রস থেকে উরুগুইয়ান অভিজ্ঞ স্ট্রাইকার কাভানি দলের ব্যবধান ৪-০'তে নিয়ে যান। বিরতির পর হ্যাসেনহাটেলের দল কিছুটা আক্রমনাত্মক হয়ে উঠে। তারই ধারাবাহিকতায় চে এ্যাডামসের সান্তনাসূচক গোলটি অবশ্য অল্পের জন্য অফসাইডের কারণে বাতিল হয়ে যায়।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীসেপ্টেম্বর - ২২
ফজর৪:৩২
যোহর১১:৫২
আসর৪:১৪
মাগরিব৫:৫৮
এশা৭:১১
সূর্যোদয় - ৫:৪৭সূর্যাস্ত - ০৫:৫৩
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
১৯৪৩৫.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.