নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বৃহস্পতিবার ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ২১ মাঘ ১৪২৭, ২১ জমাদিউস সানি ১৪৪২
জাতিসংঘের নিন্দা প্রস্তাবে চীনের বাধা
মায়ানমারে সেনা অভ্যুত্থান
জনতা ডেস্ক
মায়ানমারের নেত্রী অং সান সু চিসহ দেশটির প্রেসিডেন্ট উইন মিন্ট ও শাসক দল ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্র্যাসির (এনএলডি) শীর্ষ কয়েকজন নেতাকে আটকের মধ্য দিয়ে সংঘটিত সেনা অভ্যুত্থানের ঘটনায় জাতিসংঘের নিরপত্তা পরিষদের নিন্দা জ্ঞাপন চীনের বাধায় আটকে গেছে। নিন্দা প্রস্তাব এনে নিরাপত্তা পরিষদের দেয়া যৌথ বিবৃতিতে বাধা দিয়েছে চীন। বেইজিংয়ের সমর্থন না থাকায় যৌথ বিবৃতিটি আটকে গেছে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যৌথ বিবৃতি দিতে স্থায়ী সদস্য ও ভেটো দেয়ার ক্ষমতা থাকা চীনের সমর্থন দরকার ছিল। কিন্তু নিরাপত্তা পরিষদ সেই সমর্থন না পাওয়ায় বিবৃতিটি বাধার মুখে পড়েছে।

গত মঙ্গলবার নিরাপত্তা পরিষদের এক বৈঠকে জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস সেনা অভ্যুত্থানে মায়ানমারের নেতৃবৃন্দকে আটকের তীব্র নিন্দা জানান। নিরাপত্তা পরিষদের মুখপাত্র স্টিফেন দুজারিক এক বিবৃতিতে বলেন, মহাসচিব (গুতেরেস) মায়ানমারে নতুন পার্লামেন্টের উদ্বোধনী অধিবেশনের প্রাক্কালে স্টেট কাউন্সিলর অং সান সু চি, প্রেসিডেন্ট, উইন মিন্ট ও অন্যান্য শীর্ষ রাজনৈতিক নেতাদের আটকের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন। মায়ানমারে গণতান্ত্রিক সংস্কারের পথে এসব পদক্ষেপ বড় ধরনের বাধা' বলেও গুতেরেসের উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন দুজারিক। গত সোমবার ভোরে সু চি, প্রেসিডেন্ট উইন মিন্টসহ ক্ষমতাসীন দলের একাধিক শীর্ষ নেতাকে আটক করে মায়ানমারের সেনাবাহিনী। দেশটিতে এক বছরের জরুরি অবস্থা জারি করা হয়। রাষ্ট্রের নিয়ন্ত্রণ নেয়ার পরপরই সেনাপ্রধান মিং অং হ্লইংসহ অন্য কর্মকর্তারা দেশটির মন্ত্রিসভার ওপর ক্ষমতা দিয়ে একটি সুপ্রিম কাউন্সিল গঠন করেন।

তাৎক্ষণিকভাবে সু চি সরকারের ২৪ জন মন্ত্রী, উপমন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীকে বরখাস্ত করে সেনাবাহিনী। সেসব পদে ১১ জন নিয়োগ দেয়া হয়। যাদের বেশিরভাগই সিনিয়র সেনা কর্মকর্তা। বাকিরা সেনাসমর্থিত দল ইউএসডিপির সদস্য। আইনসভা, নির্বাহী বিভাগ ও বিচার বিভাগের ক্ষমতা নিজ হাতে রাখেন সেনাপ্রধান মিং অং হ্লইং।

গেল নভেম্বরে মায়ানমারে সাধারণ নির্বাচন নিয়ে এনএলডি ও দেশটির সামরিক বাহিনীর মধ্যে বৈরিতা চরম রূপ ধারণ করে। এনএলডি সরকার গঠনের মতো আসন পেলেও ভোটে ব্যাপক কারচুপি ও জালিয়াতির অভিযোগ তুলে সেনাবাহিনী। এরই জেরে দেশের সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানের অংশ হিসেবে সু চি ও অন্যান্য নেতৃবৃন্দকে আটক করা হয়েছে বলে ইতোমধ্যে জানিয়েছেন সেনাপ্রধান মিং অং হ্লইং। একইসঙ্গে দেশে সুষ্ঠু নির্বাচন দিয়ে জনগণের প্রতিনিধির হাতে যথারীতি ক্ষমতা হস্তান্তর করা হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি। এদিকে নিরাপত্তা পরিষদে বৈঠকের আগে মায়ানমারে জাতিসংঘের বিশেষ দূত ক্রিস্টিনা শ্রেনাও সেনাবাহিনীর অভ্যুত্থানের মধ্য দিয়ে ক্ষমতা দখলের তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেছেন, 'এটি সুস্পষ্ট যে সামপ্রতিক নির্বাচনে সু চি'র দল বিশাল ব্যবধানে জয়ী হয়েছে। নিরাপত্তা পরিষদের নিন্দা প্রস্তাবে বাধা দিয়ে বেইজিংয়ের পক্ষ থেকে এই সেনা অভ্যুত্থানকে মায়ানমারের অভ্যন্তরীণ বিষয় বলে দাবি করা হয়েছে।

সিঙ্গাপুরে ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির মায়ানমার বিশেষজ্ঞ ইলিয়ট প্রাসে-ফ্রিম্যান বিবিসিকে বলেছেন, এ ধরনের বৈদেশিক নীতির মাধ্যমে চীন তার কৌশলগত অবস্থানের বিষয়ে ইঙ্গিত দিচ্ছে। চীন এমনভাবে এটি দেখাচ্ছে যে, এটি মায়ানমারের 'অভ্যন্তরীণ ইস্যু'। এদিকে চীনের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যমও মায়ানমারে সেনা অভ্যুত্থানের বিষয়টিকে 'মন্ত্রিসভায় রদবদল' হিসেবে বর্ণনা করেছে। তবে চীনের বাধার মুখে পড়া জাতিসংঘের নিন্দা প্রস্তাবটি তাৎক্ষণিকভাবে বড় কোনো পার্থক্য তৈরি করতে পারতো না বলে মনে করেন মায়ানমার বিশেষজ্ঞ ইলিয়ট। কিন্তু নিরাপত্তা পরিষদের সেই বিবৃতি আন্তর্জাতিক প্রতিক্রিয়ার প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে কাজে লাগতো বলেও মনে করেন তিনি।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীসেপ্টেম্বর - ২৫
ফজর৪:৩৩
যোহর১১:৫১
আসর৪:১২
মাগরিব৫:৫৫
এশা৭:০৮
সূর্যোদয় - ৫:৪৮সূর্যাস্ত - ০৫:৫০
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
১৯৫৩৬.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.