নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বৃহস্পতিবার ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ২১ মাঘ ১৪২৭, ২১ জমাদিউস সানি ১৪৪২
অনুপ্রবেশ ঠেকাতে পোস্টার ও ফেস্টুন ব্যানারে 'নজর' রাখছে আ'লীগ
সফিকুল ইসলাম
আওয়ামী লীগ টানা তিন মেয়াদে ক্ষমতায় থাকায় নানা আয়োজন আর কঠোর নির্দেশনার পরও ঠেকানো যাচ্ছে না অনুপ্রবেশকারীদের। দল দীর্ঘ সময় ক্ষমতায় থাকায় সুযোগ-সুবিধা আদায়ে বিএনপি-জামায়াতসহ সকল দলের নেতাকর্মীদের অনুপ্রবেশ ঘটেছে তৃণমূল থেকে শুরু করে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতাদের হাত ধরে। তবে এবার দল থেকে বিএনপি-জামায়াত আদর্শের অনুসারীদের ঝাঁটিয়ে বিদায় করবে আওয়ামী লীগ। এ জন্য তৃণমূল থেকে বিভিন্ন দিবসে ওয়ার্ড-থানা পর্যায়ে পদ-পদবি নেই এমন কেউ নিজেদের নেতা দাবি করে পোস্টার ও ফেস্টুন-ব্যানার করতে পারবেন না। আর পদ-পদবিতে থাকা নেতারা নিজেদের ছবি ব্যাবহার করতে পারবেন না। তবে পোস্টার ও ফেস্টুন-ব্যানারের নিচে নিজেদের নাম ব্যাবহার করতে পারবেন। এমন নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ। এর আগে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরও উল্লেখিত বিষয়ে দলের নেতাকর্মীদের একাধিকবার বিশেষ নির্দেশনা দিয়েছেন। দলের নীতিনির্ধারণী পর্যায়ের বেশ কয়েকজন নেতা এসব তথ্য জানিয়েছেন। ঢাকা মহানগরের দফতর সূত্রে জানা গেছে, অনুপ্রবেশ ঠেকাতে পোস্টার, ফেস্টুন ও ব্যানারে নজর রাখছে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ। অনুমতি ছাড়া ঢাকা মহানগর দক্ষিণে কেউ আর ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের নাম ব্যবহার করে পোস্টার, ফেস্টুন, ব্যানার করতে পারবে না বলে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। মাদক বিক্রেতা, দাগী অপরাধী, মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধীদের দলে অনুপ্রবেশ ঠেকাতে এবং ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করতেই এমন পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা জানিয়েছেন, টানা তৃতীয় মেয়াদে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকায় দলে অনুপ্রবেশ ঘটছে। আওয়ামী লীগ করে না, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ লালন করে না, এমন ব্যক্তিরা হঠাৎ করেই পোস্টার-ফেস্টুন, ব্যানার সেঁটে আওয়ামী লীগ বনে যাওয়ার চেষ্টা করেন। অনেক সময় বিভিন্ন অপরাধে জড়িতরাও নেতাদের ছবি দিয়ে পোস্টার- ফেস্টুন সাঁটিয়ে দেন দেয়ালে দেয়ালে। এতে বিপাকেও পড়তে হয় নেতাদের।

জানা গেছে, এই সমস্ত নব্য আওয়ামী লীগারদের জন্য বরাবরই কোণঠাসা থাকছে তৃণমূল্যের ত্যাগী নেতাকর্মীরা। ঢাকা মহানগর দক্ষিণে ৭৫টি ওয়ার্ড ও ২৪টি থানা রয়েছে। ওয়ার্ড-থানাগুলোতে অনুপ্রবেশের পথ বন্ধ করতে পোস্টার-ফেস্টুন, ব্যানারে নজর রাখছে দক্ষিণ আওয়ামী লীগ। ওয়ার্ড-কিংবা থানা পর্যায়ে কেউ পোস্টার করতে চাইলে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের অনুমতি নিতে হবে। অনুমতি ছাড়া কেউ পোস্টার-ফেস্টুন করতে পারবে না। এছাড়াও পোস্টার ফেস্টুনেও বিভাজনের রাজনীতি স্পষ্ট দেখা গেছে। শুধুমাত্র সভাপতি-কিংবা সাধারণ সম্পাদককের একক ছবি দিয়ে পোস্টার-ফেস্টুন করছে অনেকে। পোস্টার-ফেস্টুনে এ রকম বিভাজনও বন্ধ করতে কড়া নির্দেশনা রয়েছে। পোস্টার-ফেস্টুন করলে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক উভয়ের ছবি ব্যবহার করতে হবে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের একজর নেতা বলেন, পোস্টার-ফেস্টুন তৈরি করার ক্ষেত্রে সুনির্দিষ্ট মতামত দেয়া হয়েছে। একজনের ছবি দেয়, আরেকজনের ছবি দেয় না। গ্রুপিং তৈরি করার জন্য এক শ্রেণীর মানুষ, এগুলো করা যাবে না বলে কার্যনির্বাহীর বৈঠকে এ নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এ বিষয়ে কথা হয় ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হেদায়েতুল ইসলাম স্বপনের সাথে। তিনি জানান, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা কাজ করছি। অনুপ্রবেশকারীদের ঠেকাতে যা যা করার, আমরা সবই করব। ইতোমধ্যে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে, কেউ পোস্টার ও ফেস্টুন-ব্যানারে নিজেদের ছবি ব্যাবহার করতে পারবে না। তিনি বলেন, মাদক কারবারি ও চাঁদাবাজির অভিযোগ আছে, এমন কেউ আওয়ামী লীগের নাম ব্যবহার করতে পারবে না। এককথায় বলতে গেলে দল থেকে অনুপ্রবেশকারীদের বের করার প্রয়োজনে যা যা করার সবই করা হবে। এ বিষয়ে কথা হয় ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবিরের সাথে। তিনি বলেন, অনেকে আছে আওয়ামী লীগ করে না। তারা যে যার মত করে ব্যানার, ফেস্টুন ও পোস্টার করে আওয়ামী লীগের নেতা হিসেবে পরিচয় দিয়ে অপরাধ করে, চাঁদাবাজি করে, সাধারণ মানুষকে কষ্ট দেয়। এই সমস্ত অপরাধী ও অনুপ্রবেশকারীদের পথ রুখতে ব্যানার, ফেস্টুন, পোস্টার করতে অনুমতি নিতে হবে। তবে ওয়ার্ড হোক বা থানার নেতা সবাইকে নগর আওয়ামী লীগ থেকে অনুমতি নিতে হবে। পোস্টার-ফেস্টুন করার ক্ষেত্রেও একজনের ছবি ব্যবহার করে রাজনৈতিক বিভাজন সৃষ্টি করা যাবে না বলেও কঠোর নির্দেশনা রয়েছে বলে জানান তিনি।
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীজুলাই - ২৯
ফজর৪:০৩
যোহর১২:০৫
আসর৪:৪৩
মাগরিব৬:৪৬
এশা৮:০৭
সূর্যোদয় - ৫:২৬সূর্যাস্ত - ০৬:৪১
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
১৭৩৬১.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.