নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বৃহস্পতিবার ৮ এপ্রিল ২০২১, ২৫ চৈত্র ১৪২৭, ২৪ শাবান ১৪৪২
ফের শুরু হলো গণপরিবহণ চলাচল
স্টাফ রিপোর্টার
করোনাভাইরাসের সংক্রমণরোধে সরকার ঘোষিত লকডাউনের তৃতীয় দিনে রাজধানীতে গণপরিবহন চলাচল শুরু হয়েছে। কাকডাকা ভোর থেকেই সড়কে সরকারি ও বেসরকারি মালিকানাধীন গণপরিবহনের পাশাপাশি প্রাইভেটকার, জিপ, মাইক্রোবাস, মোটরসাইকেল, সিএনজিচালিত অটোরিকশা, হিউম্যান হলার, ভ্যানগাড়ি ও রিকশা অবাধে চলাচল করে। এছাড়া রাস্তাঘাটে মানুষের উপস্থিতিও গত দুদিনের তুলনায় বহুলাংশে বেড়ে যায়। কোথাও কোথাও যানজটও দেখা যায়। গতকাল বুধবার সকালে সরেজমিন রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে এমন দৃশ্য চোখে পড়ে। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণরোধে সরকার ঘোষিত ১৮ দফা বাস্তবায়নে ৫ এপ্রিল থেকে রাজধানীসহ সারাদেশে লকডাউন শুরু হয়। নির্দেশনা অনুসারে জরুরি পণ্যবাহী পরিবহন ছাড়া রাস্তাঘাটে গণপরিবহন চলাচল বন্ধ থাকে। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের না হওয়ারও নির্দেশনা রয়েছে। কিন্তু শুরুর দিন থেকেই রাজধানীতে ঢিলেঢালাভাবে লকডাউন পালিত

হতে দেখা যায়। গত বছর সাধারণ ছুটি চলাকালে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে কঠোরভাবে পরিবহন ও মানুষকে নিয়ন্ত্রণ করতে দেখা গেলেও এবার তা ছিল অনুপস্থিত।

লকডাউনের ফলে জীবন ও জীবিকার উপর আঘাত সহজভাবে মেনে নিতে পারেনি মানুষ। তাই লকডাউনের নির্দেশনাও মানতে দেখা যায়নি। এছাড়া লকডাউনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে নির্দিষ্ট সময়ের জন্য মার্কেট খুলে দেয়ার দাবিতে রাজধানীর নিউমার্কেটে, সায়েন্স ল্যাবরেটরি, এলিফ্যান্টরোডসহ পুরানা ঢাকার বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ হয়। সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় গত মঙ্গলবার সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ঘোষণা দেন, দেশের বিভিন্ন সিটি করপোরেশন এলাকায় গতকাল বুধবার থেকে গণপরিবহন চলবে। তবে আন্তঃজেলা বাস চলাচল বন্ধ থাকবে। এ ঘোষণার পর থেকেই লকডাউন বহাল থাকবে কিনা, গণপরিবহন চললে মার্কেট শপিং মল খুলে দেয়া হবে কিনা ইত্যাদি নিয়ে রাজধানীসহ সারাদেশে নানা আলোচনা শুরু হয়। সরকারের একাধিক মন্ত্রী বলছেন, লকডাউন দেয়ার ফলে আগের তুলনায় মানুষের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার প্রবণতা বেড়েছে। মানুষ সচেতন না হলে করোনাভাইরাসের ক্রমবর্ধমান সংক্রমণ ও মৃত্যু ঠেকানো সম্ভব নয়। তারা বলেন, মানুষের জীবন ও জীবিকার কথা ভেবে এবং অফিস-আদালতে যাওয়ার অসুবিধার কথা বিবেচনা করে গণপরিবহন চলাচল করতে দেয়া হয়েছে। পরিস্থিতি দেখে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। এদিকে গত কয়েকদিন অফিসগামী যাত্রীর তুলনায় পরিবহন সংকট থাকলেও এদিনের চিত্র ভিন্ন।

সরেজমিনে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায় সড়কে গণপরিবহনের তুলনায় যাত্রী কম। গতকাল বুধবার সকাল থেকে বর্ধিত ভাড়া ও অর্ধেক যাত্রী নিয়ে চলছিল রাজধানীর গণপরিবহন। মিরপুর, কাজীপাড়া শেওড়াপাড়া, তালতলা, আগারগাঁও, ফার্মগেট, কারওয়ান বাজার, বাংলামোটর, শাহবাগ ও প্রেসক্লাব এলাকা ঘুরে দেখা যায় সড়কে পরিবহন সংকট নেই। বিকল্প পরিবহনের যাত্রী মো. শাজাহান বলেন, আমি বাসে উঠেছি আগারগাঁও-তালতলা এলাকা থেকে। আজ আমি মাত্র ১৫ থেকে ২০ মিনিটের মধ্যে বাস পেয়েছি। আশা করছি মতিঝিল যেতে বেশি সময় লাগবে না। গত দু'দিন ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হয়েছে সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও রাইড শেয়ারিং মোটরসাইকেলে জন্য। পাওয়া গেলেও ভাড়া চেয়েছে ও নিয়েছে বেশি। তবে একটু বেশি ভাড়া নিলেও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছে গণপরিবহন। বিকল্প পরিবহনের চালক সাবি্বর আহমেদ বলেন, আজকের সড়কে অন্য দিনগুলোর তুলনায় যাত্রী সংখ্যা অনেক কম। যাত্রীদের চাপ যদি কম থাকে তাহলে মালিকরা সড়কে বাস কম নামাবেন। যাত্রী কম আর বেশিতে আমাদের কোনো সমস্যা নেই, মালিকের গাড়ি চালাই। গাড়ি চললে আমাদের বেতন হবে। শিকড় পরিবহনের যাত্রী আরমান হোসেন বলেন, আমার অফিস ফার্মগেট। আজ আমি সঠিক সময়ে অফিস পৌঁছাতে পারবো। বাসের জন্য বেশি সময় অপেক্ষা করতে হয়নি। বাড়তি ভাড়া ও এক সিট ফাঁকা রেখে চলছে বাস। এক কথায় বলা যায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছে গণপরিবহন। সরেজমিনে দেখা যায়, অল্প কিছু গণপরিবহনে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা থাকলেও বেশিরভাগ পরিবহনে ছিল না। কিছু গণপরিবহনে দাঁড়িয়ে যাত্রী নিতে দেখা গেছে।
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীমে - ১৩
ফজর৩:৫৪
যোহর১১:৫৫
আসর৪:৩৩
মাগরিব৬:৩৫
এশা৭:৫৪
সূর্যোদয় - ৫:১৭সূর্যাস্ত - ০৬:৩০
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৮৭৯৬.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.