নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা,সোমবার ৫ আগস্ট ২০১৩, ২১ শ্রাবন ১৪২০, ২৬ রমজান ১৪৩৪
খাগড়াছড়িতে রমজানেও বিদ্যুৎ গ্রাহকদের সীমাহীন ভোগান্তি
খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি
আমার বাবার খুব অসুস্থ, তাকে এঙ্রে করাতে হবে কিন্তু বিদ্যুৎ নেই। আচ্ছা আংকেল বিদ্যুৎ না আসলে এঙ্রে না করালে আমার বাবা কি মরে যাবে। খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে বাবাকে দেখতে আসা অবুঝ শিশু ফাহিম এসব কথা বলে। তার বয়স ৪ বছর। অসুস্থ বাবাকে দেখতে এসে অবুঝ এ শিশু বিদ্যুৎ না থাকায় এসব কথা বলে উঠে।

বিদ্যুতের এ অবস্থায় অসহায় হয়ে পড়েছে সাধারণ মানুষ। তারপরও দায়িত্বশীল প্রতিষ্ঠান ও কর্মকর্তাসহ কর্তা ব্যক্তিরা বিদ্যুৎ নিয়ে কথা বলতেও রাজি নন। অন্যদিকে এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অবহেলা ও গাফিলতিকে দূষলেন স্থানীয় ব্যবসায়ীরা।

পবিত্র মাহে রমজানেও খাগড়াছড়িতে বিদ্যুৎ গ্রাহকরা সিমাহীন ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। জেলাবাসী বর্তমানে বিদ্যুৎ যন্ত্রণায় অতিষ্ঠ। সরকারিভাবে সেহেরি, ইফতার ও তারাবির নামাজের সময় নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ ব্যবস্থা রাখার ঘোষণা দিলেও বাস্তবে দেখা গেল তার উল্টো।

বুধবার থেকে টানা প্রায় ৩ দিন বিদ্যুৎ না থাকার ফলে রোজাদারসহ সাধারণ বিদ্যুৎ গ্রাহকের ভোগান্তির যেন শেষ নেই। অন্যদিকে ব্যবসায়ীরা তাদের ফ্রিজে রাখা বিভিন্ন পণ্যদ্রব্য নিয়ে পড়েছে ক্ষতির মুখে। বাসা বাড়িতে গৃহিণীরা দেখা গেছে রমজানের মাসেও মোমবাতি জ্বালিয়ে রান্নাবান্না করছে। ঈদকে সামনে রেখে বিদ্যুৎ না থাকায় ক্ষুব্ধ বাজার ব্যবসায়ীরা। ঘোর অন্ধকার আর বিদ্যুৎহীন খাগড়াছড়ি রাত নেমে আসলেই ভূতের বাড়িতে পরিণত হয়। শুক্রবার গভীর রাতে কারেন্ট'র এক ঝলক দেখা গেলে ক্ষণস্থায়ী অপেক্ষার পথে এ যেন কিছুই না। রমজানের শেষের দিকে ব্যবসায়ীরা যে খানে আলোকসজ্জার বাহারি রং-এ তাদের প্রতিষ্ঠানকে উজ্জ্বলিত করবে সেখানে দেখা যায় মোমবাতি জ্বালিয়ে বেচাকেনা করছে। খাগড়াছড়ি মিনি সুপার মার্কেটে এ দৃশ্য দেখে যে কারো মনে হবে আমরা এখনো আদিম যুগে বসবাস করছি।

এছাড়াও জেলাজুড়ে ঘন ঘন লোডশেডিংয়ে গ্রাহকরা ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়ায় বলেন, বর্তমান সরকারের ডিজিটেল বাংলাদেশের নমুনা মাত্র দেখছি। এরপর আরো কত কি যে দেখাবে সরকার তা আল্লাহ জানেন। অন্যদিকে বিদ্যৎ বিল দিলেও তাতেও অনিয়মের সীমা নেই। মিটারের চেয়ে অতিরিক্ত রিডিং দেখিয়েও অতিরিক্ত বিল করার ঘটনা ঘটছে অহরহ। অফিসে গেলে পুরনো হিসাব দেখিয়ে ৬-৯ হিসাব দিয়ে শান্ত করার চেষ্টা করেন বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
Jobs in Bangladesh
Jobs in Bangladesh
আজকের নামাজের সময়সূচীআগষ্ট - ৫
ফজর ৪:০৮
যোহর ১২:০৫
আসর ৪:৪২
মাগরিব ৬:৪২
এশা ৮:০১
সূর্যোদয় - ৫:৩০সূর্যাস্ত - ০৬:৩৭
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৫৮২
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদকঃ আহ্‌সান উল্লাহ্॥ প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত এবং সড়ক ৩১, বাড়ি ২৩, গুলশান, ঢাকা-১২১২ থেকে প্রকাশিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০। ফোনঃ ৮৩১৫১১৫ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.