নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা,সোমবার ৫ আগস্ট ২০১৩, ২১ শ্রাবন ১৪২০, ২৬ রমজান ১৪৩৪
হোসেনপুরে ট্রিপল মার্ডারের নেপথ্যে
হোসেনপুর (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি
কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরে মা ও দুই ছেলের বর্বরোচিত হত্যাকা-ের নেপথ্যে ছিল এক খ- জমির পৈত্রিক হিস্যা। এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায়, উপজেলার নামাসিদলা গ্রামের সদর আলীর তিন ছেলে সোরহাব উদ্দিন, বোরহান উদ্দিন ও ওমর ফারুকের মধ্যে জমি-জমা নিয়ে দীর্ঘদিনের বিরোধ ছিল। এরই ধারাবাহিকতায় পারিবারিক কলহের জের ধরে ১৯৯৩ সালে মেঝো ভাই বোরহান উদ্দিন স্থানীয় সুরাটি বাজারের কাছে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে বড় ভাই সোরহাব উদ্দিনকে হত্যা করে। ভাইকে হত্যার দায়ে সে সময় বোরহান উদ্দিনের যাবজ্জীবন কারাদ- হয়। গত ১০ রমজান জেল থেকে ছাড়া পেয়ে বাড়িতে এসে জানতে পারে তার বাবা সদর আলী মৃত্যুর আগে ক্ষোভে ও অভিমানে সমুদয় স্থাবর-অস্থাবর (২৯ কাঠা) সম্পত্তি ছোট ছেলে ওমর ফারুকের নামে লিখে দেয়। এতে বোরহান ক্ষিপ্ত হয়ে তার ভাইয়ের কাছে পৈত্রিক সম্পত্তির কিছু অংশ দাবি করে। এ নিয়ে গত ২৬ জুলাই স্থানীয় ইউপি চেযারম্যান, মেম্বার ও গণ্যমান্য বক্তিদের নিয়ে সালিশ দরবার হয়। সালিশে বোরহান বেঁচে থাকার জন্য একখ- জমির আবদার করে। কিন্তু ছোট ভাই ওমর ফারুক কোন জমি ফেরত দিতে রাজি না হওয়ায় সালিশ দরবার অমীমাংসিতভাবে শেষ হয়। এবং ২ আগস্ট পুনরায় এ নিয়ে সালিশ বসার কথা ছিল এবং ঐ দরবারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তেরও কথা ছিল কিন্তু তার আগেই ১ আগস্ট সন্ধ্যায় পৈত্রিক সম্পত্তি বঞ্চিত দিশেহারা বোরহান উত্তেজিত হয়ে খালি বাড়িতে ভাইয়ের স্ত্রী ও দুই সন্তানকে হত্যা করে।

গত শুক্রবার হোসেনপুর উপজেলার নামাসিদলা গ্রামের সদর আলীর বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, মা ও দুই ভাইকে হারিয়ে শোকে পাথর হয়ে আছে ওমর ফারুকের বেঁচে যাওয়া একমাত্র কন্যা ৭ম শ্রেণীর ছাত্রী ফাতেমা খাতুন (১২)। বহু চেষ্টার পর সে কিছুটা স্বাভাবিক হলে সংবাদিকদের জানায়, তার বাবাকে মেঝো চাচা খুনি বোরহান উদ্দিন গত কয়েকদিন যাবত জমির হিস্যা নিয়ে হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছিল। সে ঘটনার দিন ১ আগস্ট সকালে বাবাকে হত্যার উদ্দেশ্যে ছুরি হাতে ২ বার ধাওয়া করেছিল। সে সময় তার বাবা দৌড়ে পালিয়ে আত্মরক্ষা পেলেও ঐ দিন সন্ধ্যার পূর্বে তার বাবা পার্শ্ববর্তী সুরাটি বাজারে কাঁঠাল বিক্রি করতে গেলে খালি বাড়িতে মা ও দুই ভাইকে একা পেয়ে শক্ত কাঠের টকুরা দিয়ে বেধড়ক পিটিয়ে প্রথমে মাকে হত্যা করে এবং পরে দুই ভাইকে হত্যা করে খড়কুটার ভিতর লুকিয়ে পালিয়ে যায় বোরহান। সে সময় বৃষ্টি হওয়ায় পার্শ্ববর্তী বাড়ির লোকজন একটু পরে আঁচ করতে পেরে থানায় খবর দেয়। পুলিশ গিয়ে ঘটনাস্থলে মা নাজমা আক্তার ও ভাই শাহজাহানকে মৃত দেখতে পায়। অপর ভাই লিমন মিয়াকে মুমূর্ষু অবস্থায় কিশোরগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করলে কিছুক্ষণের মধ্যে লিমন মারা যায়। ওমর ফারুক জেল ফেরত ভাইকে এমনিতেই কিছু জমি দেয়ার চিন্তা করেছিল কিন্তু তার আগেই সব শেষ হয়ে গেল বলে কান্নায় ভেঙে পড়েন। গ্রেপ্তারকৃত খুনি বোরহান পুলিশকে জানায়, জমির হিস্যা পাওয়ার লোভে তাদেরকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে সে। এ সময় বেঁচে যাওয়া ভাতিজি ও ভাইকে বাড়িতে পেলে তাদেরও হত্যার চেষ্টা করত বলেও জানায় সে। এ ব্যাপারে ওসি মীর মোশারফ হোসেন জানায়, বোরহান ঠা-া মাথায় ট্রি-পল মার্ডার করে পালিয়ে যাওয়ার সময় পার্শ্ববর্তী নান্দাইল বাসস্ট্যান্ড থেকে থানায় নিয়ে আসা হয়। এ ঘটনায় খুনির ভাই ওমর ফারুক বাদী হয়ে হোসেনপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
Jobs in Bangladesh
Jobs in Bangladesh
আজকের নামাজের সময়সূচীআগষ্ট - ৫
ফজর ৪:০৮
যোহর ১২:০৫
আসর ৪:৪২
মাগরিব ৬:৪২
এশা ৮:০১
সূর্যোদয় - ৫:৩০সূর্যাস্ত - ০৬:৩৭
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৬৭৩
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদকঃ আহ্‌সান উল্লাহ্॥ প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত এবং সড়ক ৩১, বাড়ি ২৩, গুলশান, ঢাকা-১২১২ থেকে প্রকাশিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০। ফোনঃ ৮৩১৫১১৫ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.