নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা,সোমবার ৫ আগস্ট ২০১৩, ২১ শ্রাবন ১৪২০, ২৬ রমজান ১৪৩৪
কুড়িল উড়াল সেতু উদ্বোধনকালে প্রধানমন্ত্রী
বর্তমান সরকারের আমলে এমন কোনো সেক্টর নেই যেখানে উন্নয়ন হয়নি
স্টাফ রিপোর্টার
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গতকাল রাজধানীতে নির্মিত এ যাবতকালের সবচেয়ে বড় উড়াল সেতু কুড়িল ফ্লাইওভার উদ্বোধন করেছেন। এতে ঢাকা মহানগরীতে যানজট হরাস পেয়ে দ্রুত যোগাযোগ ব্যবস্থা চালুর মাধ্যমে এই মহানগরী বসবাসের আধুনিক আবাসস্থলে পরিণত হওয়ার নতুন অধ্যায়ে প্রবেশ করলো। ৩ দশমিক ১ কিলোমিটার দীর্ঘ এবং ৯ দশমিক ২ মিটার প্রস্থের এই ফ্লাইওভারটি উদ্বোধনকালে প্রধানমন্ত্রী উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষায় আগামী সাধারণ নির্বাচনে সতর্কতার সঙ্গে ভোট দেয়ার জন্য জনগণের প্রতি আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, তাঁর সরকার রাজধানীর উন্নয়নে বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছে এবং কৌশলগত পরিবহন পরিকল্পনার (এসটিপি) আওতায় আধুনিক ঢাকা গড়তে বহুমুখী উদ্যোগ নিয়েছে। এর অংশ হিসেবে মিরপুর-বিমানবন্দর ফ্লাইওভার, বনানী রেল লাইনে ওভারপাস এবং সংযোগকারী সড়ক চালু এবং হাতিরঝিল প্রকল্প বাস্তবায়িত হয়েছে।

শেখ হাসিনা বলেন, কুড়িল ফ্লাইওভার ঢাকার গেটওয়ে এবং আধুনিক পূর্বাচল সিটির এন্ট্রি পয়েন্ট হবে। এতে পূর্বাচলের সঙ্গে যোগাযোগ সহজ হয়ে যানজট কমবে এবং অর্থনৈতিক খাতে ইতিবাচক প্রভাব পড়বে।

ফ্লাইওভার এলাকায় আয়োজিত এ অনুুষ্ঠানে ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী সাহারা খাতুন ও গৃহায়ন ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী এডভোকেট আবদুল মান্নান খান উপস্থিত ছিলেন। গৃহায়ন ও গণপূর্ত সচিব ড. খন্দকার শওকত হোসেইনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্থানীয় সংসদ সদস্য একেএম রহমতুল্লাহ ও রাজউক চেয়ারম্যান এম নূরুল হুদা বক্তৃতা করেন। এই ফ্লাইওভাটির মাধ্যমে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর, নিকুঞ্জ, বনানী, রামপুরা ও পূর্বাচলে যাতায়াত করা যাবে। কুড়িল মোড়ের যানজট হরাস এবং রাজধানীর সঙ্গে পূর্বাচল নতুন শহরকে সংযুক্ত করতে ৩০৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ফ্লাইওভারটি নির্মাণ করে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)।

শেখ হাসিনা বলেন, যাত্রাবাড়ি ফ্লাইওভার নির্মাণের কাজ শেষের দিকে। এছাড়া ২৬ কিলোমিটার ঢাকা এলিভেটেড এঙ্প্রেস ওয়ের কাজও পুর্ণোদ্যমে চলছে। শান্তি নগর থেকে ঢাকা-মাওয়া সড়কে ঝিলমিল পর্যন্ত আর একটি ফ্লাইওভার নির্মাণ করা হবে। মেট্রোরেল প্রকল্প অনুমোদিত হয়েছে এবং এর কাজ শিঘ্রই শুরু হবে- এ কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের মেয়াদেই পদ্মা ব্রিজের নির্মাণ কাজ শুরু হবে।

বর্তমান সরকার ৯৬ সালে ক্ষমতায় এসে মোবাইল এবং এবার জনগণের হাতে ল্যাপটপ দিয়েছে জানিয়ে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমরা কথা দিয়েছিলাম বাংলাদেশকে ডিজিটাল বাংলাদেশ হিসেবে গড়ে তুলবো। আজ বাংলাদেশ ডিজিটাল। ১৯৯৬ সাল ক্ষমতায় এসে আমরা মানুষের হাতে মোবাইল দিয়েছিলাম। এবার ক্ষমতায় আসার পর আমরা মানুষের হাতে হাতে ল্যাপটপ দিয়েছি। প্রযুক্তি ব্যবহার করে মানুষের জীবনযাত্রা সহজ করেছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা ক্ষমতা গ্রহণের পরে এমন কোন সেক্টর নেই সেখানে আপনারা বলতে পারবেন, আমরা উন্নয়ন করি নাই।

তিনি বলেন, সরকারের এই উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখা দরকার। আমি জানি না দেশের মানুষ আবার সেই অন্ধকারে ফিরে যাবে কিনা? দেশের মানুষ যদি আবার অন্ধকারে ফিরে যায় তাহলে আমার বলার কিছুই নেই। তবে আমি দেশবাসিকে এ বিষয়ে সতর্ক করতে চাই।

বর্তমান সরকারের সময়ে সকল নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে দাবি করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা ভোট চুরি করি না। আমাদের সময়ে যতগুলো নির্বাচন হয়েছে সকল নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হয়েছে। আমরা জনগণের ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দিয়েছি। জনগণ যাকে ভোট দিবে সেই জয়ী হবে। আমরা তাকেই মেনে নেব।

এইচএসসি পরীক্ষায় ফলাফল প্রসঙ্গে প্রথানমন্ত্রী বলেন, আমাদের আশা ছিলো বিগত বছরের তুলনায় ছাত্র-ছাত্রীদের রেজাল্ট এ বছর আরো ভালো হবে। কিন্তু এবার এইচএসসি পরীক্ষার দিনগুলোতে বিএনপি-জামায়াত-শিবির হরতাল দিয়েছে। এতে বাচ্চাদের পড়াশোনার ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। আমাদের টার্গেট ছিলো রেজাল্ট আরো ভালো হবে। কিন্তু তা পূরণ করতে পারি নাই। তবে ৭৪ শতাংশ পাস কম কথা নয়। অতীতে কোন সরকারই এটা করতে পারে নাই্ আমরাই এটা করেছি।

দেশে লোডশেডিং হবার কোন কারণ নেই উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি নিজেই বলেছিলাম প্রতি দিন দুই ঘণ্টা করে লোডশেডিং দিতে। তা না হলে মানুষ ভুলে যাবে দেশে লোড শেডিং ছিলো। দেশে বর্মমানে লোডশেডিং হবার মতো কোন পরিস্থিতি নেই। তবে কিছু কিছু জায়গায় কেউ কেউ ইচ্ছে করে নামাজ, ইফতার ও সেহরীর সময় লোডশেডিং করে। এরকম ঘটনা কোথাও হলে সঙ্গে সঙ্গে আমাদের জানাবেন।

প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যের শুরুতে উপস্থিত সবাইকে পবিত্র রমজানের মোবারকবাদ ও আসন্ন ঈদুল ফিতরের অগ্রিম শুভেচ্ছা জানান।
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
Jobs in Bangladesh
Jobs in Bangladesh
আজকের নামাজের সময়সূচীআগষ্ট - ৫
ফজর ৪:০৮
যোহর ১২:০৫
আসর ৪:৪২
মাগরিব ৬:৪২
এশা ৮:০১
সূর্যোদয় - ৫:৩০সূর্যাস্ত - ০৬:৩৭
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৬৪২
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদকঃ আহ্‌সান উল্লাহ্॥ প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত এবং সড়ক ৩১, বাড়ি ২৩, গুলশান, ঢাকা-১২১২ থেকে প্রকাশিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০। ফোনঃ ৮৩১৫১১৫ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.