নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বুধবার, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৩১ ভাদ্র ১৪২৮, ৬ সফর ১৪৪৩
জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যেতে হয় বিদ্যালয়ে
ভৈরব প্রতিনিধি
কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে পানিবন্দি হয়ে রয়েছে ধুপাখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় নামে একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। জীবনের ঝুকি নিয়ে ছোট ছোট নৌকায় চড়ে বিদ্যালয়ে আসতে হয় কোমলমতি শিশু শিক্ষার্থীদের।

কোভিড-১৯ এর কারণে দীর্ঘ দেড় বছর বন্ধ থাকার পর গতকাল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হয়েছে। সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হলেও কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজেলার ছয়সূতী ইউনিয়নের ধুপাখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যাতায়াতের কোনো রাস্তা নেই। ফলে চরম ভোগান্তিতে ওই বিদ্যালয়ে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। নৌকা ডুবি ও ভোগান্তির কারণে দীর্ঘ দিন পর স্কুল খুললেও শিক্ষার্থীদের স্কুলে ফেরা নিয়ে দেখা দিয়েছে আশঙ্কা।

সংশ্লিষ্টরা বলেন, ২০১৩-১৪ সালে বিদ্যালয়বিহীন এলাকায় ১৫০০ বিদ্যালয় স্থাপন প্রকল্পের আওতায় ধুপাখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি স্থাপিত হয়। বর্তমানে প্রথম শ্রেণী থেকে ৫ম শ্রেণী পর্যন্ত সব মিলিয়ে শিক্ষার্থী সংখ্যা রয়েছে ১৪০ জন। বর্তমানে বিদ্যালয়ের চার পাশেই বর্ষার পানিতে টইটুম্বুর করছে। বিদ্যালয়টিতে এই শিশু শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের এক মাত্র মাধ্যম হচ্ছে ছোট ছোট ডিঙি নৌকা।

স্থানীরা বলেন, বিদ্যালয়টিতে যাতায়াতে প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটে থাকে। বর্ষা মৌসুমে ছোট ডেঙি নৌকা দিয়ে বিদ্যালয়ে যাতায়াত কালে আমরা অনেক সময় দুর্ঘটনার শিকার হই। এ ছাড়াও বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কাও রয়েছে। বর্ষা ছাড়াও বছরের অন্য সময় আমাদের কাদামাটি পাড়িয়ে বিদ্যালয়ে আসতে হয়।

একাধিক শিক্ষার্থী বলেন, বিদ্যালয়ে যাওয়ার জন্য রাস্তা না থাকায় বর্ষাকালে আমাদের নৌকায় করে স্কুলে আসা যাওয়া করতে হয়। নৌকায় চড়ে আসতে গিয়ে অনেক সময় পড়ে গিয়ে জামা কাপড় নষ্টসহ বই-খাতা সব ভিজে যায়। দুর্ভোগের কারণে আমাদের অনেক সহপাঠি বিদ্যালয় পরিবর্তনও করছে। রাস্তা নির্মাণ হলে এ স্কুলে শিক্ষার্থীর সংখ্যা বাড়বে এবং স্কুলে আসতে অনেক সুবিধা হবে।

বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক জসিম উদ্দিন বলেন, রাস্তা না থাকায় আমাদের অনেক ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। স্কুলে ছাত্রছাত্রীরা আসতে চায় না। অভিভাবকরা বাচ্চাদের দিতে চান না। বর্ষা মৌসুমে ডিঙি নৌকা দিয়ে আসতে গিয়ে নৌকা থেকে পড়ে গিয়ে প্রায়ই বইখাতা ভিজে যাওয়ারও ঘটনা ঘটছে। বর্তমানে সব শ্রেণী মিলিয়ে স্কুলে শিক্ষার্থী রয়েছে ১৪০ জন। একটি রাস্তার অভাবে বিদ্যালয়ে দিন দিন শিক্ষার্থীল সংখ্যা কমে আসছে।

এ বিষয়ে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি জসিম উদ্দিন লিটন বলেন, এলাকার পাকা সড়ক থেকে বিদ্যালয়ের দূরত্ন প্রায় আধা কিলোমিটার। রাস্তা না থাকায় শিক্ষা কার্যক্রমে কোন উন্নতি হচ্ছে না। স্থানীয় এমপির মাধ্যমে একটি প্রকল্প হাতে পেলেও জায়গা সঙ্কটের কারণে রাস্তা নির্মাণ করা যাচ্ছে না।
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীসেপ্টেম্বর - ২২
ফজর৪:৩২
যোহর১১:৫২
আসর৪:১৪
মাগরিব৫:৫৮
এশা৭:১১
সূর্যোদয় - ৫:৪৭সূর্যাস্ত - ০৫:৫৩
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৪৩৬৮.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.